ছেলেকে আজ আর কর্মস্থলে পৌঁছে দিতে পারলেন না

ছেলেকে আজ আর কর্মস্থলে পৌঁছে দিতে পারলেন না

অপরাধ ও বিচার দিনাজপুর প্রতিদিন দিনাজপুরের খবর সড়ক দূর্ঘটনা

ছেলেকে আজ আর কর্মস্থলে পৌঁছে দিতে পারলেন না

কিশোর ছেলে চাকরি করে পাটকলে। বাবা নিজের অটোরিকশা করে তাকে প্রতিদিন কর্মস্থলে পৌঁছে দেন। আজ মঙ্গলবার সকালেও রওনা হয়েছিলেন। পথে দুর্ঘটনায় মারা যান বাবা। গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ছেলে। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় ঘটেছে এ ঘটনা।

নিহত ব্যক্তির নাম হাকিমউদ্দিন (৬৫)। তিনি উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রামের বাসিন্দা। হাকিমউদ্দিনের ছেলে মো. শাকিল (১৫) বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বীরগঞ্জ উপজেলার ১৬ মাইল এলাকার আমিন জুট মিলে চাকরি করে শাকিল। প্রতিদিন সকালে তাকে কর্মস্থলে পৌঁছে দেন বাবা হাকিমউদ্দিন। আজ সকালেও নিজের অটোরিকশায় করে ছেলেকে নিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশে বের হয়েছিলেন।

সকাল সাতটার দিকে অটোরিকশা পৌঁছায় পাটকল থেকে কিছুটা দূরে দিনাজপুর-পঞ্চগড় মহাসড়কের জননী পেট্রল পাম্পের সামনে। সেখানে পঞ্চগড়গামী একটি মাইক্রোবাসের (ঢাকা মেট্রো-চ-১৪-২৫৭৪) সঙ্গে অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। দুমড়ে–মুচড়ে যায় অটোরিকশাটি। এতে গুরুতর আহত হন বাবা-ছেলে। প্রথমে তাঁদের নেওয়া হয় বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখানকার চিকিৎসকেরা হাকিমউদ্দিনকে দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে নয়টায় তাঁর মৃত্যু হয়।

বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মতিন বলেন, মাইক্রোবাসটিকে জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পলাতক। এ ঘটনায় বীরগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

সূত্রঃ Jago News

Dinajpur Today

ছেলেকে আজ আর কর্মস্থলে পৌঁছে দিতে পারলেন না

কিশোর ছেলে চাকরি করে পাটকলে। বাবা নিজের অটোরিকশা করে তাকে প্রতিদিন কর্মস্থলে পৌঁছে দেন। আজ মঙ্গলবার সকালেও রওনা হয়েছিলেন। পথে দুর্ঘটনায় মারা যান বাবা। গুরুতর আহত হয়ে হাসপাতালে ছেলে। দিনাজপুরের বীরগঞ্জ উপজেলায় ঘটেছে এ ঘটনা।

নিহত ব্যক্তির নাম হাকিমউদ্দিন (৬৫)। তিনি উপজেলার নিজপাড়া ইউনিয়নের বলরামপুর গ্রামের বাসিন্দা। হাকিমউদ্দিনের ছেলে মো. শাকিল (১৫) বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

এলাকাবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, বীরগঞ্জ উপজেলার ১৬ মাইল এলাকার আমিন জুট মিলে চাকরি করে শাকিল। প্রতিদিন সকালে তাকে কর্মস্থলে পৌঁছে দেন বাবা হাকিমউদ্দিন। আজ সকালেও নিজের অটোরিকশায় করে ছেলেকে নিয়ে গন্তব্যের উদ্দেশে বের হয়েছিলেন।

সকাল সাতটার দিকে অটোরিকশা পৌঁছায় পাটকল থেকে কিছুটা দূরে দিনাজপুর-পঞ্চগড় মহাসড়কের জননী পেট্রল পাম্পের সামনে। সেখানে পঞ্চগড়গামী একটি মাইক্রোবাসের (ঢাকা মেট্রো-চ-১৪-২৫৭৪) সঙ্গে অটোরিকশার মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। দুমড়ে–মুচড়ে যায় অটোরিকশাটি। এতে গুরুতর আহত হন বাবা-ছেলে। প্রথমে তাঁদের নেওয়া হয় বীরগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

অবস্থা আশঙ্কাজনক হওয়ায় সেখানকার চিকিৎসকেরা হাকিমউদ্দিনকে দিনাজপুর এম আবদুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পরামর্শ দেন। ওই হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সকাল সাড়ে নয়টায় তাঁর মৃত্যু হয়।

বীরগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবদুল মতিন বলেন, মাইক্রোবাসটিকে জব্দ করা হয়েছে। তবে চালক পলাতক। এ ঘটনায় বীরগঞ্জ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.