তুরাগে ট্রলারডুবি ৩ দিনের মাথায় নিখোঁজ মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

তুরাগে ট্রলারডুবি: ৩ দিনের মাথায় নিখোঁজ মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

দিনাজপুর প্রতিদিন সড়ক দূর্ঘটনা

তুরাগে ট্রলারডুবি: ৩ দিনের মাথায় নিখোঁজ মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীর অদূরে আমিনবাজার এলাকায় তুরাগ নদে কয়লার ঘাটে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারডুবির ঘটনায় আরও এক নারী ও তার শিশুকন্যার মরদেহ উদ্ধার করেছে ডুবুরি দল। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার (১১ অক্টোবর) সকালে রূপায়ন বেগম (৩০) নামে ওই নারীর মরদেহ আমিনবাজার সেতুর নিচে ভেসে ওঠে। তার তিন বছরের শিশুকন্যার মরদেহ উদ্ধার করা হয় মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর নদী থেকে।

বিকেলে ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার (মিডিয়া) মো. রায়হান জাগো নিউজকে এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, এ নিয়ে মোট সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হলো। তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ছয়জনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। রূপায়ন বেগম ও তার শিশুকন্যা ছাড়া উদ্ধার অন্যরা হলেন শিউলি আক্তার (২০), ইমরান (৩), ফারহান মনি (৪), আরমান (৪) এবং নাম না জানা একজন।

শনিবার (৯ অক্টোবর) ভোর ৫টার পর মাঝনদীতে বাল্কহেডের ধাক্কায় ট্রলারটি তলিয়ে যায়। ডুবে যাওয়ার সময় নৌকার কয়েকজন যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠে আসেন। এরপর সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। অভিযানে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ডুবুরি দল এবং নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ ও বিআইডব্লিউটিএ অংশ নেয়। শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টা নাগাদ চার শিশু ও এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে তীব্র স্রোত ও আলো স্বল্পতার কারণে প্রথম দিনের অভিযান স্থগিত করে ফায়ার সার্ভিস।

সূত্রঃ Jago News

Dinajpur Today

তুরাগে ট্রলারডুবি: ৩ দিনের মাথায় নিখোঁজ মা-মেয়ের মরদেহ উদ্ধার

রাজধানীর অদূরে আমিনবাজার এলাকায় তুরাগ নদে কয়লার ঘাটে ইঞ্জিনচালিত ট্রলারডুবির ঘটনায় আরও এক নারী ও তার শিশুকন্যার মরদেহ উদ্ধার করেছে ডুবুরি দল। এ নিয়ে এখন পর্যন্ত মোট সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

সোমবার (১১ অক্টোবর) সকালে রূপায়ন বেগম (৩০) নামে ওই নারীর মরদেহ আমিনবাজার সেতুর নিচে ভেসে ওঠে। তার তিন বছরের শিশুকন্যার মরদেহ উদ্ধার করা হয় মুন্সিগঞ্জের মুক্তারপুর নদী থেকে।

বিকেলে ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার (মিডিয়া) মো. রায়হান জাগো নিউজকে এসব তথ্য জানান।

তিনি বলেন, এ নিয়ে মোট সাতজনের মরদেহ উদ্ধার করা হলো। তাদের মধ্যে এখন পর্যন্ত ছয়জনের পরিচয় নিশ্চিত হওয়া গেছে। রূপায়ন বেগম ও তার শিশুকন্যা ছাড়া উদ্ধার অন্যরা হলেন শিউলি আক্তার (২০), ইমরান (৩), ফারহান মনি (৪), আরমান (৪) এবং নাম না জানা একজন।

শনিবার (৯ অক্টোবর) ভোর ৫টার পর মাঝনদীতে বাল্কহেডের ধাক্কায় ট্রলারটি তলিয়ে যায়। ডুবে যাওয়ার সময় নৌকার কয়েকজন যাত্রী সাঁতরে তীরে উঠে আসেন। এরপর সকাল ৮টা ৫০ মিনিটে উদ্ধার অভিযান শুরু হয়। অভিযানে ফায়ার সার্ভিসের ছয়টি ডুবুরি দল এবং নৌবাহিনী, কোস্টগার্ড, নৌ-পুলিশ ও বিআইডব্লিউটিএ অংশ নেয়। শনিবার বিকেল সাড়ে ৪টা নাগাদ চার শিশু ও এক নারীর মরদেহ উদ্ধার করা হয়। পরে তীব্র স্রোত ও আলো স্বল্পতার কারণে প্রথম দিনের অভিযান স্থগিত করে ফায়ার সার্ভিস।

Leave a Reply

Your email address will not be published.