না ফেরার দেশে বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি

না ফেরার দেশে বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি

দিনাজপুর প্রতিদিন দিনাজপুরের খবর

না ফেরার দেশে বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি

দীর্ঘ ১১ দিন মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে ঢাকার আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় না ফেরার দেশে চলে গেলেন দিনাজপুরের বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি শাহিনুর রহমান শাহিন (৪৬)। ইন্নানিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজেউন। আজ বুধবার বাদযোহর সোটাপীর কাচারি ঈদগাহ মাঠে জানাযা শেষে সারাঙ্গপুর মধ্যপাড়া পারিবারিক কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

শাহিন পৌর শহরের সারাঙ্গপুর মধ্যপাড়া মহল্লার অছিমুদ্দিনের ছেলে এবং বিরামপুর প্রেসক্লাবের বর্তমান সভাপতি ও বিজয়টিভি বিরামপুর প্রতিনিধি হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

এর আগে, গত (২৯ আগস্ট) বিরামপুর থেকে মোটরসাইলে করে ফুলবাড়ি যাওয়ার সময় জয়নগন এলাকায় এক বাইসাইকেল আরোহীকে সাইড দিতে গিয়ে মহাসড়কে ছিটকে পড়ে মাথায় গুরুতর আঘাত পান। পরে,স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে বিরামপুর উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন। কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে উন্নত চিতিৎসার জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

ওই দিন পরিবারের লোকজন উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে রংপুর ডক্টর ক্লিনিকে ভর্তি করান। সেখানে তিনদিন চিকিৎসা শেষে অবস্থার অবনতি হলে ঢাকার নিউরোসাইন্স হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। এর দুই দিন পর তাকে ঢাকা আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে নিবিড় পর্যাবেক্ষণ কেন্দ্র (আইসিইউ) তে কৃতিম অক্সিজেন দিয়ে রাখা হয়। সেখানেই মঙ্গলবার সন্ধায় তিনি মারা যান।

শাহিনুর রহমানের ছোট ভাই রিয়াজুল ইসলাম জানান,‘ঢাকার আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে কখনো অবস্থান উন্নতি আবার কখনো অবনতি এভাবে কয়েকদিন পার হয়েছে। অবশেষে সন্ধ্যার পর চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, প্রেসক্লাবের সভাপতির মৃত্যুতে স্থানীয় সাংসদ সদস্য মো.শিবলী সাদিক, উপজেলা নির্বার্হী অফিসার পরিমল কুমার সরকার, উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু, মেয়র আককাস আলী,থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত শোক প্রকাশ করেছেন। মৃত্যুর খবরে সহকর্মী, শুভাকাঙ্খিরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। আত্মীয় স্বজনের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

সূত্রঃ কালের কণ্ঠ

না ফেরার দেশে বিরামপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি

শাহিনুর রহমানের ছোট ভাই রিয়াজুল ইসলাম জানান,‘ঢাকার আয়েশা মেমোরিয়াল হাসপাতালে ভর্তির পর থেকে কখনো অবস্থান উন্নতি আবার কখনো অবনতি এভাবে কয়েকদিন পার হয়েছে। অবশেষে সন্ধ্যার পর চিকিৎসকরা তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

এদিকে, প্রেসক্লাবের সভাপতির মৃত্যুতে স্থানীয় সাংসদ সদস্য মো.শিবলী সাদিক, উপজেলা নির্বার্হী অফিসার পরিমল কুমার সরকার, উপজেলা চেয়ারম্যান খায়রুল আলম রাজু, মেয়র আককাস আলী,থানার ওসি সুমন কুমার মহন্ত শোক প্রকাশ করেছেন। মৃত্যুর খবরে সহকর্মী, শুভাকাঙ্খিরা কান্নায় ভেঙে পড়েন। আত্মীয় স্বজনের মাঝে নেমে এসেছে শোকের ছায়া।

Leave a Reply

Your email address will not be published.