বাড়ির পাশের পুকুরে মিললো শিশুর মরদেহ

বাড়ির পাশের পুকুরে মিললো শিশুর মরদেহ

অপরাধ ও বিচার দিনাজপুর প্রতিদিন দিনাজপুরের খবর

বাড়ির পাশের পুকুরে মিললো শিশুর মরদেহ

দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে বাড়ির পাশের পুকুর থেকে মোছা. সুমাইয়া নামের আড়াই মাস বয়সী এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় শিশুর বাবাসহ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার নাফানগর ইউনিয়নের ডহরা গ্রামের একটি পুকুর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রোববার রাতে শিশু কন্যাকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন মাশতুরা বেগম (১৮)। রাতে তার মুখে কাপড় পেঁচিয়ে শিশুটিকে নিয়ে যান কয়েকজন। পরে মাশতুরার কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীরা ঘরে প্রবেশ করে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় তাকে দেখতে পান। বিছানায় নবজাতককে না দেখে স্বজনরা খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। সকালে বাড়ির পাশের পুকুরে মরদেহ দেখতে পান শিশুর দাদি রিনা বেগম।

পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. নবাব আলী খবর দিলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে। এসময় শিশুর বাবা সোহেল রানা, দাদা মো. জামান ও দাদি রিনা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

নাফানগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. শাহনেওয়াজ পারভেজ সাহান বলেন, অপরাধীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

এ ব্যাপারে বোচাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহামুদুল হাসান জানান, মরদেহ দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

সূত্রঃ Jago News

Dinajpur Today

বাড়ির পাশের পুকুরে মিললো শিশুর মরদেহ

দিনাজপুরের বোচাগঞ্জে বাড়ির পাশের পুকুর থেকে মোছা. সুমাইয়া নামের আড়াই মাস বয়সী এক শিশুর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় শিশুর বাবাসহ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে।

সোমবার (৬ সেপ্টেম্বর) দুপুরে উপজেলার নাফানগর ইউনিয়নের ডহরা গ্রামের একটি পুকুর থেকে মরদেহটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্র জানায়, রোববার রাতে শিশু কন্যাকে নিয়ে ঘুমিয়ে পড়েন মাশতুরা বেগম (১৮)। রাতে তার মুখে কাপড় পেঁচিয়ে শিশুটিকে নিয়ে যান কয়েকজন। পরে মাশতুরার কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে প্রতিবেশীরা ঘরে প্রবেশ করে সংজ্ঞাহীন অবস্থায় তাকে দেখতে পান। বিছানায় নবজাতককে না দেখে স্বজনরা খোঁজাখুঁজি করতে থাকেন। সকালে বাড়ির পাশের পুকুরে মরদেহ দেখতে পান শিশুর দাদি রিনা বেগম।

পরে স্থানীয় ইউপি সদস্য মো. নবাব আলী খবর দিলে পুলিশ মরদেহ উদ্ধার করে। এসময় শিশুর বাবা সোহেল রানা, দাদা মো. জামান ও দাদি রিনা বেগমকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে যায় পুলিশ।

নাফানগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান মো. শাহনেওয়াজ পারভেজ সাহান বলেন, অপরাধীদের শনাক্ত করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করছি।

এ ব্যাপারে বোচাগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মাহামুদুল হাসান জানান, মরদেহ দিনাজপুরের এম আব্দুর রহিম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.