বীরগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল ব্রিধান-৪৮’র শস্য কর্তন

বীরগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল ব্রিধান-৪৮’র শস্য কর্তন

কৃষি পণ্য ও ব্যবসা দিনাজপুর প্রতিদিন দিনাজপুরের খবর

বীরগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল ব্রিধান-৪৮’র শস্য কর্তন

দিনাজপুর সংবাদাতাঃ দিনাজপুরের বীরগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল বিধান-৪৮ প্রদর্শনী প্লটের শস্য আনুষ্ঠানিকভাবে কর্তন করা হয়েছে।

রোববার বিকেলে উপজেলার ভোগনগর ইউনিয়নের ভোগনগর গ্রামের মোঃ রুহুল আমীনের ৩একর জমির প্রদর্শনী প্লটে শস্য কর্তনের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন খামারবাড়ী দিনাজপুর উপ-পরিচালক প্রদীপ কুমার গুহ।

কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, উপজেলায় মোট আবাদি জমির পরিমান ৩২হাজার হেক্টর। এরমধ্যে ১৭৫হেক্টর জমিতে উচ্চ ফলনশীল বিধান -৪৮এর আবাদ হয়েছে। ব্রিধান-৪৮ এর ফলন তুলনামূলকভাবে বেশি হয়। উচ্চ ফলনশীল ব্রিধান-৪৮ বীজতলা থেকে শুরু করে ধানকাটা পর্যন্ত ১০০ থেকে ১১০ দিন পর্যন্ত সময় লাগে। অন্য ধানের তুলনায় এ জাতের ধানে ৩০-৪০ ভাগ পানি ও সার কম লাগে।

উদ্যোক্তা কৃষক মোঃ রুহুল আমীন জানান, উপজেলা কৃষি অফিসের সহায়তায় ৩একর জমিতে পরীক্ষা মুলক ভাবে উচ্চ ফলনশীল বিধান -৪৮এর আবাদ করেন। ৩একর জমিতে মোট ধান হয়েছে প্রায় ৪টন। এখন ধানের দাম একটু বেশি থাকায় বেশ লাভবান হয়েছেন বলে তিনি জানান। এখন এই জমিতে আমন ধান চাষ করবেন।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা আবুরেজা মোঃ আসাদুজ্জান বলেন, ব্রি ধান৪৮ আউশ মৌসুমে অত্যন্ত সম্ভবনাময় জাত, জীবনকাল কম, ফলন বেশী। এ জাতের বিশেষ গুন হচ্ছে ব্রি ধান৪৮ এর গাছ শক্ত, তাই সহজে হেলে পড়ে না, ছড়ায় ধানের সংখ্যা বেশী এবং চিটার সংখ্যা খুবই কম। ফলে আউশ মৌসুমে এ জাতের আবাদ বৃদ্ধি করে এদেশের খাদ্য নিরাপত্তা আরও টেকসই করে বিদেশে চাল রপ্তানি করা সম্ভব হবে।

খামারবাড়ী দিনাজপুর উপ-পরিচালক প্রদীপ কুমার গুহ জানান, বর্তমান সরকার কৃষি বান্ধব সরকার। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশের কৃষি ক্ষেত্রে বেশ আন্তরিক। এই ধারবাহিকতায় উচ্চ ফলনশীল ফসলের গবেষণা কার্যক্রম আরও গতিশীল হবে ও দেশের খাদ্য নিরাপত্তা টেকসই হবে।
অনুষ্ঠানে কৃষি অফিসের বিভিন্ন কর্মকর্তা ও কর্মচারী, স্থানীয় কৃষক এবং সাংবাদিকবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

বীরগঞ্জে উচ্চ ফলনশীল ব্রিধান-৪৮’র শস্য কর্তন

Dinajpur Today

Leave a Reply

Your email address will not be published.