সাকিবের ছন্দে ফেরাটাই বড় ব্যাপার

সাকিবের ছন্দে ফেরাটাই বড় ব্যাপার

খেলাধুলা ও বিনোদন দিনাজপুর প্রতিদিন দিনাজপুরের খবর দেশের খবর

সাকিবের ছন্দে ফেরাটাই বড় ব্যাপার

এখনো আশানুরূপ না হলেও বাংলাদেশের ব্যাটিং আগের চেয়ে ভালো হয়েছে। বোলাররাও বেশ ভালো করেছে ওমানের বিপক্ষে। তবে সবকিছুর পরও আমি বলব, ম্যাচটা ওমানের বাজে ফিল্ডিংই জিতিয়েছে বাংলাদেশকে।

লিটন দাস ও মেহেদী হাসান দ্রুত আউট হয়ে যাওয়ার পর মোহাম্মদ নাঈম ও সাকিব আল হাসান ভালো জুটি গড়েছে। তৃতীয় উইকেটে মাত্র ৫৩ বলে ৮০ রান করে ইনিংসের ভিতটা গড়ে দিয়েছে তারাই। নাঈম একটু ধীরে খেললেও সাকিব উইকেটে এসে রানরেটটা ঠিক রেখেছে। সবচেয়ে বড় ব্যাপার হচ্ছে ব্যাট হাতে সাকিবের ছন্দে ফেরা। ও এমন একজন খেলোয়াড়, চাপের মধ্যেও নিজের স্বাভাবিক খেলাটা খেলে যেতে পারে।

সাকিবের দুর্ভাগ্য যে ও অর্ধশতক পায়নি, ভালো খেলতে খেলতেই রানআউট হয়ে গেছে। সরাসরি থ্রোটা ছিল দুর্দান্ত। সাকিবকে রানআউট করতে এই থ্রোটা ভালো হলেও পুরো ইনিংস বিবেচনায় ওমানের ফিল্ডিং মোটেই ভালো ছিল না। গ্রাউন্ড ফিল্ডিংয়ে অনেক ভুল তো ওমান করেছেই, একই সঙ্গে ওরা চারটি ক্যাচও ছেড়েছে। এর মধ্যে নাঈমের ক্যাচই দুবার ছেড়েছে ওরা। একটি ১৮ রানে, আরেকটি ২৬ রানে। এ দুটি ক্যাচের একটি হয়ে গেলে দৃশ্যপট পাল্টেও যেতে পারত।

আসলে ক্রিকেটটা এমনই। নাঈম ‘জীবন’ পাওয়ার সুযোগটা নিতে পেরেছে। আউট হওয়ার আগে ৫০ বলে ৬৪ রান করেছে। তবে নাঈম আর সাকিব মিলে যে ভিতটা গড়ে দিয়ে গেছে, এর সুবিধা নিয়ে বাকি ব্যাটসম্যানরা রানটাকে বাড়িয়ে নিতে পারেনি। এ কারণে একটু হতাশা থেকেই যায়। স্কোরটা আরও বড় হতে পারত আমাদের।

বোলিংয়ে আগের ম্যাচের চেয়ে এ ম্যাচে বেশ উন্নতি হয়েছে বাংলাদেশের। দেড় শর বেশি রান তাড়া করতে নেমে ওমানও অসাধারণ শুরু করে। এমন নয় যে শুরুর দিকে তাসকিন আহমেদ, মোস্তাফিজুর রহমান বা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন খারাপ বোলিং করেছে। আসলে ওমানের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা খুব ভালো ব্যাটিং করেছে। বিশ্বমানের কিছু শট খেলেছে ওরা। একটা সময় তো মনে হচ্ছিল ম্যাচটা বুঝি আমরা হারতেই চলেছি।

ব্যাটিংয়ের পর সাকিব বল হাতেও ছন্দে ছিল। ২৮ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছে সে। মোস্তাফিজ তার প্রধান অস্ত্র কাটারের ব্যবহারটা খুব ভালোভাবে করেই ৪ উইকেট নিয়েছে। একটি উইকেট নিয়েছে সাইফউদ্দিনও এবং সেটা আঁটসাঁট আর গোছানো বোলিং করেই। তাদের পাশাপাশি আমি আরেকজন বোলারেরও নাম বলব। ওমান যখন খুব ভালো ব্যাটিং করছিল, সেই সময় বল হাতে নিয়ে ওদের রানের গতিটা কমিয়ে দিয়েছে মেহেদী।

সূত্রঃ প্রথম আলো 

Dinajpur Today

সাকিবের ছন্দে ফেরাটাই বড় ব্যাপার

Leave a Reply

Your email address will not be published.