ভারত সীমান্তঘেঁষা বিরামপুরে একদিনে সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্ত

ভারত সীমান্তঘেঁষা বিরামপুরে একদিনে সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্ত

দিনাজপুর প্রতিদিন দিনাজপুরের খবর স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা

ভারত সীমান্তঘেঁষা বিরামপুরে একদিনে সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্ত

ভারত সীমান্তঘেঁষা দিনাজপুরের বিরামপুর উপজেলার কাটলা ইউনিয়নে একদিনে সাতজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। একই দিন উপজেলায় শনাক্ত হয়েছেন ২৬ জন। যা গত বছর করোনাভাইরাস শুরু থেকে সর্বোচ্চ। এ নিয়ে উপজেলায় মোট করোনা রোগী শনাক্ত হলো ৬৮ জনে। শনাক্তের হারে এ উপজেলায় ৬৬.৬৬ শতাংশ। এসময় করোনায় মৃত্যু হয়েছে ১০ জনের।

আজ বৃহস্পতিবার দিনাজপুর সিভিল সার্জন কার্যালয় থেকে প্রেরিত জেলার কভিড-১৯ সংক্রমণ সংক্রান্ত প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা সিভিল সার্জন আব্দুল কুদ্দস।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স সূত্রে জানা যায়, করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে গত মাস পর্যন্ত আক্রান্ত ছিল চারজনে। কিন্তু হঠাৎকরে চলতি মাসের ১৫ দিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৬৪ জন, একই সময়ে চারজনের মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার একদিনেই আক্রান্ত হয় ২৬ জন যা করোনাভাইরাস শুরু থেকে আক্রান্তের দিক থেকে সর্বোচ্চ। এদের মধ্যে সীমান্তবর্তী কাটলা ইউনিয়নেই সাতজন আক্রান্ত হয়েছেন। উপজেলায় মোট করোনারোগীর সংখ্যা ৬৮ জন এদের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দুই চিকিৎসকসহ ১৬ জন আক্রান্ত হয়েছেন।

এদিকে করোনাভাইরাসের লাগাম টেরে ধরতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে একদিনে উপজেলার ৩০টি স্থানে ১০ হাজার মাস্ক বিতরণ করেছে। তাছাড়াও গত কয়েক দিনে উপজেলার বিভিন্ন স্থানে মাস্ক ব্যবহার না করার কারণে ৫০ জনকে প্রায় ২০ হাজার টাকা জরিমানা করেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট পরিমল কুমার সরকার।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য ও পরিবাবর পরিকল্পনা অফিসার শ্যামল কুমার রায় কালের কণ্ঠকে বলেন, দিনাজপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের আরটি-পিসিআর ল্যাবে করোনা পরীক্ষা জন্য ৩৯টি নমুনা পাঠানো হয়। তাদের মধ্যে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে র‌্যাপিড অ্যান্টিজেন পরীক্ষায় দুজন এবং পিসিআর ল্যাবে পরীক্ষায় ২৪ জনের শরীরে করোনা শনাক্ত হয়েছেন। এনিয়ে একদিনেই উপজেলায় ২৬ জনের শরীরে করোনাভাইরাস শনাক্ত হয়।

বিরামপুর ইউএনও পরিমল কুমার সরকার বলেন, বিরামপুর সীমান্তবর্তী উপজেলা হওয়ায় আমরা বেশ ঝুঁকিতে আছি। দিন দিন বাড়ছে করোনারোগীর সংখ্যা। আজ একদিনেই আক্রান্ত হয়েছেন ২৬ জন।

তিনি বলেন, করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধে প্রতিদিন আমরা মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করছি। এর মধ্যে আমরা একদিনেই ১০ হাজার মাস্ক বিতরণ করেছি। সংক্রমণরোধে এলাকারা মানুষকে সচেতন হতে হবে।

ভারত সীমান্তঘেঁষা বিরামপুরে একদিনে সর্বোচ্চ করোনা আক্রান্ত

সূত্রঃ কালের কন্ঠ 

Dinajpur Today Facebook Page and Group

Leave a Reply

Your email address will not be published.