দিনাজপুর হাই স্কুল

দিনাজপুর হাই স্কুল, দিনাজপুর।

দিনাজপুর প্রতিদিন শিক্ষা ও প্রগতি

দিনাজপুর হাই স্কুল

দিনাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়টি দিনাজপুর শহরের প্রাণকেন্দ্রে অবস্থিত একটি অতি প্রাচীন ও ঐতিহ্যবাহী শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। ১৯৪৫ সালে একাডেমিক স্বীকৃতি পেয়ে বর্তমান সময় পর্যন্ত পরিচালিত হয়ে আসছে। বয়োজ্যোষ্ঠ ব্যক্তিবর্গের মাধ্যমে জানা যায়, এই বিদ্যালয়টি ১৯৪৫ সালেরও প্রায় এক যুগ পূর্বে মাদ্রাসা / হাই-মাদ্রাসা হিসাবে পরিচালিত হতো। সময়ের প্রবাহে নাম পরিবর্তনের মাধ্যমে বর্তমানে দিনাজপুর উচ্চ বিদ্যালয় নামে পরিচিতি লাভ করেছে।

বিদ্যালয়টিতে ডাবল শিফটে (প্রভাতী শাখায় ছাত্রী ও দিবা শাখায় ছাত্র) ৩য় শ্রেণি হতে ১০ম শ্রেণি পর্যন্ত পাঠদান করানো হয়। বিদ্যালয়টির দুইটি বৃহৎ দ্বিতল ভবন যাহা পর্যায়ক্রমে ফ্যাসিলিটিস্ ডিপার্টমেন্ট ও বিদ্যালয়ের নিজস্ব উদ্যোগে নির্মিত।

বিদ্যালয়টিতে নবম শ্রেণিতে মানবিক, বিজ্ঞান ও ব্যবসায় শিক্ষা শাখা এবং সময়ের প্রয়োজনে পেশা ভিত্তিক দক্ষতা অর্জনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষাবোর্ডের অধীনে এস.এস.সি. ভোকেশনাল কোর্সের সিভিল কন্সট্রাকশন ও কম্পিউটার শাখা চালু রয়েছে। তাছাড়া ৬ষ্ঠ শ্রেণি হতে ৮ম শ্রেণি পর্যন্ত উভয় শিফটে ক, খ শাখা চালু রয়েছে। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে শিক্ষার্থীদের দক্ষ করে গড়ে তোলার লক্ষ্যে বিদ্যালয়টিতে শেখ রাসেল ডিজিটাল ল্যাব স্থাপিত হয়েছে, যা মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা ভিডিও কনফারেন্স এর মাধ্যমে ১৩ আগস্ট ২০১৬ তারিখে শুভ উদ্বোধন করেন।

বিদ্যালয়টিতে বর্তমানে প্রায় ১১৫০ এর অধিক ছাত্র-ছাত্রী অধ্যয়নরত। দক্ষ পরিচালনা পর্ষদ, অভিজ্ঞ শিক্ষক/শিক্ষিকাগণের আন্তরিক প্রচেষ্টায় বিদ্যালয়টি সার্বিক উন্নতির দিকে ধাবিত হচ্ছে। জাতীয় দিবসগুলো যথাযোগ্য মর্যাদার সাথে পালন করা হয়। উক্ত দিবসগুলোর বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা সাফল্য অর্জন করে। বিদ্যালয়টির পরিবেশ কোলাহলমুক্ত ও মনোরম। প্রশাসনসহ স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের সহযোগিতা পেলে অত্র বিদ্যালয়টি শহরের একটি শ্রেষ্ঠ বিদ্যালয় হিসাবে গড়ে উঠবে বলে সকলের বিশ্বাস।

দিনাজপুর হাই স্কুল প্রধান শিক্ষক এর বক্তব্যঃ

দিনাজপুরউচ্চ বিদ্যালয় ওয়েবসাইট খুলে সরকারের ডিজিটালাইজেশন কার্যক্রমে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে এবং সরকারের ভিশন ২০২১ এর সাথে একাত্মতা প্রকাশ করেছে। স্কুলের ওয়েবসাইটটিতে যে তথ্য, উপাত্ত থাকবে তা অবাধ তথ্য পাওয়ার অধিকার নিশ্চিত করবে এবং তা সবার কাছে সহজ লভ্য হবে। এটা নিশ্চিত যে, আমাদেরকে ইনফরমেশন হাইওয়েতে উঠতে গেলে, চলতে গেলে তথ্য প্রযুক্তির সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। তথ্য প্রযুক্তির ব্যবহার নিশ্চিতকরণের মাধ্যমে বিভিন্ন সরকারী দপ্তর, পরিদপ্তর ও অধিদপ্তরের কার্যক্রমে সচ্ছতা, গতিশীলতা, জবাবদিহিতা নিশ্চিত হবে এবং সেবার মান উন্নত হবে ও দুর্নীতি সহনীয় মাত্রায় নেমে আসবে বলে আমার দৃঢ় বিশ্বাস।

শ্রদ্ধেয় পিতা-মাতা/অভিভাবকগণকে অবশ্যই মনে রাখতে হবে, “আপনি আপনার সন্তানের সর্বপ্রথম ও সর্বোৎকৃষ্ট শিক্ষক এবং আপনার গৃহটি হচ্ছে আপনার সন্তানের সর্ববৃহৎ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান।” তাই আপনার সন্তানের সাফল্য আমাদের সকলের সমন্বিত প্রচেষ্টারই ফল। আমরা পিতা-মাতা/অভিভাবক ও শিক্ষকদের মধ্যে যোগাযোগকে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ মনে করি। এ কারণে শিক্ষা সংক্রান্ত যে কোন সমস্যা, পরামর্শ নিয়ে স্কুলে এসে যোগাযোগ করতে দ্বিধাবোধ করবেন না। আসুন সবার সম্মিলিত প্রচেষ্টায় এই প্রতিষ্ঠানকে সত্যিকারের মানুষ গড়ার কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তুলি। পরিশেষে দিনাজপুর উচ্চ বিদ্যালয়ের ওয়েবসাইটির সফলতা ও সর্বোত্তম ব্যবহার নিশ্চিত হোক এই কামনা করেই শেষ করছি।

Dinajpur Today Facebook Page and Group

Leave a Reply

Your email address will not be published.