হিলিতে আড়তদাররা ধান না কেনায় বিপাকে কৃষকরা শস্যভাণ্ডার খ্যাত দিনাজপুরের হিলিতে আড়তদাররা ধান না কেনায় চলতি বোরো মৌসুমের ধান নিয়ে বিপাকে পড়েছেন অত্র

হিলিতে আড়তদাররা ধান না কেনায় বিপাকে কৃষকরা

কৃষি পণ্য ও ব্যবসা দিনাজপুর প্রতিদিন দিনাজপুরের খবর

হিলিতে আড়তদাররা ধান না কেনায় বিপাকে কৃষকরা

শস্যভাণ্ডার খ্যাত দিনাজপুরের হিলিতে আড়তদাররা ধান না কেনায় চলতি বোরো মৌসুমের ধান নিয়ে বিপাকে পড়েছেন অত্র অঞ্চলের কৃষকরা। অনেক আড়তদারই বর্তমানে ধান কিনতে চাচ্ছেন না বা আবার অনেকে কিনতে চাইলেও ধানের দাম কম বলছেন। এতে করে ঈদের আগে যে ধান ৯৪০ থেকে ৯৫০ মন বিক্রি হয়েছিল এখন সেই ধান কমে সাড়ে ৮শ’ টাকা থেকে ৯শ’ টাকায় গিয়ে দাঁড়িয়েছে। ধানের এমন দাম কমায় উৎপাদন খরচ উঠা নিয়ে সংশয়ে পড়েছেন কৃষকরা, এটিকে আড়তদারদের কারসাজি বলে মনে করছেন তারা।

হিলির মালেপাড়া গ্রামের কৃষক জাহাঙ্গীর হোসেন বলেন, আমরা কৃষকরা ধান নিয়ে আড়তদারদের নিকট জিম্মি হয়ে পড়েছি। একে তো বোরো মৌসুমের ধান বেশি রাখা যায় না, এর উপর আড়তদাররা ধান কিনছেন না। এতে করে ধান নিয়ে বিপাকের মধ্যে পড়েছি। ধান এখন গলার কাটা হয়ে দাঁড়িয়েছে। বিভিন্ন আড়তগুলোতে ঘুরেও কেউ ধান নিতে চাইছে না দু’একজন ধান নিতে চাইলেও ধানের দাম মনপ্রতি ৭০/৮০ টাকা কম বলছে। এর উপর ধান কাঁচা শুকে নিয়ে আসেন আরও অনেক কিছু। ধানের ভালো ফলন পাওয়ায়, ভালো দাম পেলে কৃষকরা এবার লাভবান হওয়ার স্বপ্ন দেখছিল। প্রথমের দিকে ধানের দাম ভালোই ছিল কিন্তু এখন হঠাৎ করে ধানের দাম কমে গেছে। এতে করে লাভ দূরে থাক উৎপাদন খরচ উঠানো নিয়ে শঙ্কা তৈরি হয়েছে।

হিলির জালালপুর গ্রামের কৃষক সুজন হোসেন বলেন, এটা আড়তদারদের কারসাজি ছাড়া আর কিছুই নয়। এভাবে হঠাৎ করে ধানের দাম কমে যাবে? তারা সিন্ডিকেট করে ধান ক্রয় বন্ধ রেখে ধানের দাম কমাচ্ছেন। যদি তাই না হবে, মোকামে ধান ক্রয় বন্ধ থাকলে তাহলে সকলেই ধান ক্রয় বন্ধ রাখতো কিন্তু অনেকে ধান ক্রয় বন্ধ রাখলেও কেউ কেউ ধান ক্রয় করছেন; কিন্তু তারা আগের চেয়ে কৃষকদের কাছ থেকে কম দামে কিনছেন আর গুদামে মজুদ করছেন।

হিলিতে আড়তদাররা ধান না কেনায় বিপাকে কৃষকরা

Dinajpur TodayFacebook Page and Group

Leave a Reply

Your email address will not be published.